শনিবার, ১৩ জুলাই, ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১
শনিবার, ১৩ জুলাই, ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১
Ajker Dainik
#ব্যাটিং পজিশনে নাজেহাল অবস্থা, বোলাররাই একমাত্র ভরসা

সুপার এইটের প্রথম ম্যাচেই অজিদের মুখোমুখি বাংলাদেশ

আজকের দৈনিক | এম মাহীউজ্জামান শাওন

প্রকাশিত: জুন ২০, ২০২৪, ০৮:০৪ পিএম

সুপার এইটের প্রথম ম্যাচেই অজিদের মুখোমুখি বাংলাদেশ

সুপার এইটের লড়াইয়ে বাংলাদেশ সময় শুক্রবার ভোর সাড়ে ছয়টায় অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মাঠে নামছে বাংলাদেশ। ওয়েস্টইন্ডিজের অ্যান্টিগার ভিভিয়ান রিচার্ডস স্টেডিয়ামে, যেখানে সুপার এইটের প্রথম ম্যাচে ১৯৫ রানের টার্গেটে সাউথ আফ্রিকার কাছে মাত্র ১৮ রানে হেরেছে মার্কিনরা। এই মাঠের বিশেষত্ব হচ্ছে এর বায়ুপ্রবাহ যা বাংলাদেশ সামলাতে হয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রের মাঠগুলোতেও। নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষেও আরনস ভেল গ্রাউন্ডে একই পরিস্থিতিতে পড়তে হয়েছিল বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের। এই বিশ্বকাপে বাংলাদেশের বড় চিন্তার কারণ ব্যাটসম্যানরা। বিশেষ করে টপ অর্ডারের নাজেহাল অবস্থা। গ্রুপ-১ এর ভারত-আফগানিস্তানের ম্যাচ হয়ে গেছে বৃহস্পতিবার রাতেই। অ্যান্টিগা ও বার্বুডার কন্ডিশনে বড় সমস্যা হবে বাতাসের বিপরীতে অস্ট্রেলিয়ার বোলিং আক্রমণের মুখোমুখি হওয়া। সেক্ষেত্রে টপ অর্ডার থেকে লোয়ার অর্ডারের সকল ব্যাটসম্যানকে সতর্কতার সাথেই বড় স্কোর তাড়া করার লক্ষ্য নিয়েই মাঠে নামতে হবে। আইপিএলে পাওয়া হ্যামস্ট্রিংয়ের চোট থেকে সম্পূর্ণভাবে সুস্থ হয়ে উঠেছেন মিচেল মার্শ। বাংলাদেশের বিপক্ষে তার বোলিং এ ফেরার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে। তবে দলের যে বোলিং লাইনআপ, সেক্ষেত্রে নিজের বল হাতে নেবার খুব একটা প্রয়োজনীয়তা মনে করছেন না অজি অধিনায়ক। 

মার্কাস স্টয়নিস, মিচেল স্টার্ক, নাথান ইলিস, ম্যাক্সওয়েল, অ্যাডাম জাম্পার মতো বোলারদের বিপরীতেই ছন্নছাড়া হয়ে যাওয়া ব্যাটিং লাইনআপ নিয়ে মাঠে নামবে শান্ত-তামিম-হৃদয়-মাহমুদউল্লাহ-সাকিবরা। 

যুক্তরাষ্ট্রের মাঠগুলোর পিচ বোলারদের সহায়তা করলেও ওয়েস্টইন্ডিজের গ্রাউন্ডগুলোর মতো এতটাও বোলিংসুলভ আচরণ করেনি। এবারের নবম আসরে ওয়েস্টইন্ডিজের মাঠে ব্যাটসম্যানদের খুব ভেবেচিন্তেই ব্যাট-এ বলের আঘাত হানতে হয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই এক্ষেত্রে ব্যাটসম্যানদের দূর্বলতা প্রকাশ পেয়েছে। সেই হিসেব কষলে এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপই প্রত্যেকটি ব্যাটসম্যান এর জন্য ভাবনার বিষয়। এখন পর্যন্ত সবচেয়ে কম রানরেট এই বিশ্বকাপেই হয়েছে। যা মাত্র ৬.৭১। তুলনামূলক স্লো পিচ হওয়ায় ডেথ ওভারগুলোতে বোলাররা যেমন বিপরীতে দাঁড়িয়ে থাকা ব্যাটসম্যানদের বিপদে ফেলতে সক্ষম হচ্ছে, ঠিক তেমনি চাপের মুখে পড়তে হচ্ছে ব্যাটসম্যানদের। 
এরইমধ্যে অবাক করার বিষয় ঘটেছে গত সোমবারের কিউই দল নিউজিল্যান্ড ও পাপুয়া নিউগিনির ম্যাচে । এদিন নিউজিল্যান্ডের ৩৩ বছর বয়সী ফাস্ট বোলার লকি ফার্গুসন এমন একটি রেকর্ড গড়েছেন যার কাছাকাছি যাওয়া দুষ্কর ব্যাপার। তেমনি বিশ্বকাপ মঞ্চে তা টপকে যাবার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। কারণ সমীকরণটা যে চার ওভারে বিনা রানে তিন উইকেটের রেকর্ড! 


অন্যদিকে বাংলাদেশের মুস্তাফিজুর রহমান, তানজিম হাসান সাকিব, তাসকিন আহমেদের বোলিং ফিগার যথেষ্ট উন্নতি করেছে। বিশেষ করে টিমের গুরুত্বপূর্ণ পেসার শরিফুল ইসলাম ইনজুরিতে যাবার পর মুস্তাফিজ-তানজিম সাকিবের ওপর অনেকটাই ভরসা ধরে রেখেছে টিম ম্যানেজমেন্ট। কন্ডিশন, উইকেটের ধরণ ভিন্ন থাকা সত্ত্বেও গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচে শেষ চার ওভারে চার উইকেট নিয়ে মাত্র ১৫ রান দিয়েছে বাংলাদেশের বোলাররা। সাউথ আফ্রিকার বিপক্ষে মাত্র ৪ রানে হেরে যাবার দিনেও শেষ ৪ ওভারে মাত্র ২৩ রান পেয়েছিল প্রোটিয়ারা। ডাচদের বিপক্ষে শেষ চার ১৮ রানে তিন উইকেট এসেছে। রিশাদ হোসেন, মাহমুদউল্লাহ, সাকিব আল হাসান ছাড়াও স্লগ বা ডেথ ওভারে পেসারদের ভূমিকাই জেতার পেছনে দারুণভাবে সাহায্য করেছে টিম বাংলাদেশকে। বিশেষ করে মুস্তাফিজুর রহমানের অভিজ্ঞতা ও কাটার, এককভাবে অন্যরকম ঢাল হয়ে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশের বোলিং লাইনআপে। বাংলাদেশ পেসাররা এ পর্যন্ত গ্রুপ পর্বের ৪ ম্যাচে নিয়েছেন ৯.৯৫ গড়ে ২৩টি উইকেট।

তবে অজিদের চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছেন ৬.১ ফুটের লেগস্পিনার রিশাদ হোসেন, যিনি ইতোমধ্যেই এই টুর্নামেন্টে ৭টি উইকেট শিকার করেছেন। আর সে অনুযায়ী ছক কষেছে মিচেল মার্শ-অ্যাডাম জাম্পার দল। এদিকে টি-টোয়েন্টির আইসিসি অলরাউন্ডারদের র‌্যাঙ্কিংয়ে প্রথমবারের মতো দারুণ ফর্মে থাকা মার্কাস স্টয়নিস উঠে এসেছেন তালিকার শীর্ষে। সাকিব আল হাসান দুই ধাপ এগিয়ে এসেছেন তালিকার তৃতীয় নম্বরে। ২৩১ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে এগিয়ে থাকা স্টয়নিসের চেয়ে ১৩ পয়েন্ট পিছিয়ে রয়েছেন সাকিব আল হাসান (২১৮)। তবে বিশাল এক মাইলফলক স্পর্শ করতে সাকিবের প্রয়োজন অজি দলের যেকোনো খেলোয়াড়ের একটি উইকেট। আর এতেই বিশ্বকাপ মঞ্চে একাই ৫০টি উইকেট শিকারের কৃত্তি গড়বেন বিশ্বসেরা সাকিব আল হাসান।


বাংলাদেশ জাতীয় দলের প্রধান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে বলেছেন, এইটা সম্পূর্ণভাবে ম্যাচের দিনের কন্ডিশনের ওপরে নির্ভর করছে। অবশ্যই আমাদের কিছু সীমাবদ্ধতা রয়েছে এবং সে অনুযায়ী আমরা আমাদের সামর্থ্য অনুযায়ী খেলার চেষ্টা করবো। 
অন্যদিকে অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক মিচেল মার্শ জানিয়েছেন, তারা স্পষ্টতই ভালো ক্রিকেট খেলছে এবং আমরা জানি এই পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ একটি শক্তিশালী দল। তাই, আমরা তাদেরকে সম্মান জানাবো এবং আশা করি আমরা আমাদের এ গ্রুপের খেলাটি নিজেদের করে নিতে পারবো। নিজের ব্যাটিং ব্যর্থতা নিয়ে প্রেস ব্রিফিং এ বাংলাদেশের অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত জানিয়েছেন, আশা করবো পরের রাউন্ডে এসব ভুল যতো কম করা যায়। 
লিগ বা গ্রুপ পর্বে বাংলাদেশ চারটি ম্যাচের বিপরীতে তিনটিতে জিতে সুপার এইটে যেভাবে পা বাড়িয়েছে বাংলাদেশ দল। পারফরমান্সের ধারাবাহিকতা যেন এমনই থাকে সেই আশায় রাখছেন বাংলার কোটি সমর্থকরা। একদিন বিরতি রেখেই 
আগামীকাল শনিবার বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে আটটায় সুপার এইট পর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে মাঠে নামবে বাংলাদেশ দল। ওয়েস্টইন্ডিজের সময় ও বাংলাদেশের সময়ের পার্থক্যর কারনেই আমাদের মনে গড়মিলের ভুল হতেই পারে। তবে বাংলাদেশ সময় ১০ ঘণ্টা এগিয়ে থাকবে। আসলে বাংলাদেশের সাথে ভারতের ম্যাচটি হবে ২২ জুন।  দুই দানবীয় দল অস্ট্রেলিয়া ও ভারত- এই দুই দলের যেকোনো একটির সাথে জিততে পারলেই সেমিফাইনাল সমীকরণ কিছুটা হলেও সহজ হয়ে যাবে শান্ত-সাকিব-মাহমুদউল্লাহদের জন্য।  


বাংলাদেশ (সম্ভাব্য দল) - তানজিদ হাসান তামিম, লিটন দাস (উইকেটরক্ষক), নাজমুল হোসেন শান্ত (অধিনায়ক), সাকিব আল হাসান, তাওহীদ হৃদয়, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, জাকের আলী অনিক, তানজিম হাসান সাকিব, রিশাদ হোসেন, তাসকিন আহমেদ ও মুস্তাফিজুর রহমান।   


অস্ট্রেলিয়া (সম্ভাব্য দল) - ডেভিড ওয়ার্নার, ট্র্যাভিস হেড, মিচেল মার্শ (অধিনায়ক), গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, মার্কাস স্টয়নিস, টিম ডেভিড, ম্যাথু ওয়েড (উইকেটরক্ষক), প্যাট কামিন্স, মিচেল স্টার্ক, অ্যাডাম জাম্পা, জোশ হ্যাজেলউড। 

 

আ.দৈ/এমএমএস 

Link copied!